দ্রততম হাফ সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়ে সাকিবের নিশ্চিত হারা ম্যাচ জিতালো ইরফান

দ্রততম হাফ সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়ে সাকিবের নিশ্চিত হারা ম্যাচ জিতালো ইরফান

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগেে টানা দ্বিতীয় ম্যাচেও জয় তুলে নিল সাকিব আল হাসানের মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ব্যাট হাতে অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ব্যর্থ হলেও ইরফান শুক্কুরের ঝড়ো ইনিংসে পারটেক্সকে ৬ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়েছে মোহামেডান।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

পারটেক্সের দেওয়া ১৫৮ রানে লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ২৯ রানের মধ্যে ২ উইকেট হারিয়ে বসে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ৭৮ রানে হারায় ৪ ব্যাটসম্যানকে। মিরপুরে পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে হারের দুশ্চিন্তাও ঘিরে ধরেছিল তারকাসর্বস্ব মোহামেডানকে।

তবে সেই দুশ্চিন্তা দূর করে দিলেন ইরফান শুক্কুর। চাপের মুখে দাঁড়িয়ে খেললেন বিধ্বংসী এক ইনিংস। তার ২৯ বলে ৫ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় হার না মানা ৫২ রানের তাণ্ডবে ভর করেই ১৪ বল আর ৬ উইকেট হাতে রেখে পারটেক্সকে হারিয়েছে মোহামেডান। আর এইটি টুর্নামেন্টের দ্রততম হাফ সেঞ্চুরির রেকর্ড।

ওপেনিংয়ে পারভেজ হোসেন ইমন ঝড় তুলতে গিয়ে ফিরলেও (১১ বলে ১৭ রান) আরেক ওপেনার মাহমুদুল হাসান দলের জয়ে বড় অবদান রেখেছেন। ২৬ বলে ৪ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় ৩৮ রান করেন তিনি।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

তার আগেই সাকিব আল হাসান (১ বলে ০) আর শামসুর রহমানকে (১৬ বলে ১৯) হারিয়ে বেশ বিপদে পড়েছিল মোহামেডান। ইরফান শুক্কুর নিজের সহজাত ব্যাটিংয়েই সেই বিপদ কাটিয়েছেন।

পারটেক্সের পক্ষে ৩ ওভারে ১৮ রান দিয়ে ৩টি উইকেট শিকার করেন তাসামুল হক। তিনি আবার ব্যাটিংয়েও ৫৯ রান করেছিলেন। তবে অলরাউন্ড পারফর্ম করেও দলকে জেতাতে পারলেন না।

এর আগে যে ব্যাটিংয়ে সবটুকু আলোই কেড়েছেন ‘অখ্যাত’ আব্বাস মুসা। সাকিব আল হাসান, তাসকিন আহমেদ, আবু জায়েদ রাহিদের মতো জাতীয় দলের তারকাদের অনায়াসে খেলে চার-ছক্কার ঝড় তুলেন এই তরুণ।

ওপেনিংয়ে নেমে ৪৪ বলে ৬৪ রানের মারকুটে এক ইনিংস খেলেন মুসা। যে ইনিংসে ৫টি চার যেমন মেরেছেন, হাঁকিয়েছেন ৫টি ছক্কাও। শেষ পযন্ত তাসকিনের শিকার হন মুসা।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

মুসার মতো বিধ্বংসী না হলেও ঠিকই হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন তাসামুল হক। দ্বিতীয় উইকেটে মুসার সঙ্গে তিনি গড়েন ৯৫ রানের জুটি। ৫৬ বলে ৫৯ রান করে তাসামুল রানআউটের শিকার হন।

এরপর দ্রুতই কয়েকটি উইকেট হারায় পারটেক্স। শেষ পর্যন্ত ৫ উইকেটে ১৫৭ রানের লড়াকু সংগ্রহ দাঁড় করায় দলটি।

তাসকিন, সাকিব উইকেটের দেখা পেলেও ছিলেন খরুচে। তাসকিন ৪ ওভারে ৩৩ রানে নেন ২ উইকেট। সাকিব ৪ ওভারে ১ উইকেট নিতে খরচ করেন ৩১ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

পারটেক্স স্পোর্টিং ক্লাব : ১৫৭/৫ (২০ ওভার)

আব্বাস ৬৪, তাসামুল ৫৯

তাসকিন ৩৩/২, রাহী ২৬/১, সাকিব ৩১/১

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব : ১৫৪/৪ (১৭.৪ ওভার)

ইরফান ৫২*, মাহমুদুল ৩৮, নাদিফ ২৭*

তাসামুল ১৮/৩, ইমরান ৪৩/১

ফল : মোহামেডান ৬ উইকেটে জয়ী।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

About অজয়

blank

Check Also

5 Best Defi Wallets For Decentralized Finance

The latter is where the FATF enters countries like Iran and North Korea with significant …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.