Breaking News

বাংলাদেশের সামনে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুঁড়ে দিল স্কটল্যান্ড

মাঠে গড়িয়েছে টি-২০ বিশ্বকাপের সপ্তম আসর। টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নেমেছে বাংলাদেশ। দাপুটে বোলিংয়ে শুরুটা ভালো হলেও তা ধরে রাখতে পারেনি টাইগাররা।
নির্ধারিত ২০ ওভারে স্কটল্যান্ডের সংগ্রহ ৯ উইকেটে ১৪০ রান।

খাতা কলমে গ্রুপের সবচেয়ে শক্ত প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। স্কটল্যান্ডের হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে নামেন জর্জ মুন্সে ও কাইল কোয়েতজার। শুরু থেকেই ব্যাট হাতে হিমশিম খাচ্ছিলেন এই দুজন।

প্রথম দুই ওভারে মাত্র ৫ রান নিতে সক্ষম হন দুই ওপেনার। তবে তৃতীয় ওভারে আর উইকেট পতন ঠেকাতে পারেনি স্কটিশরা। সাইফউদ্দিনের করা সেই ওভারের চতুর্থ বলে ইয়োর্কারে বোল্ড হন স্কটল্যান্ড অধিনায়ক কাইল কোয়েতজার। ৭ বল খেললেও রানের খাতা খুলতে পারেননি তিনি।

এরপর ম্যাথু ক্রসকে সঙ্গে নিয়ে ইনিংস গড়ার চেষ্টা করেন মুন্সে। তবে দিনটা যেন মাহেদী হাসানের। বোলিংয়ে এসেই একই ওভারে দুজনকে ফেরান তিনি। সাজঘরে ফেরার আগে মুন্সে ২৯ ও ক্রস ১১ রান করেন।

এর তিন ওভার পর জোড়া আঘাত হানেন সাকিব আল হাসান। ৩ বলের ব্যবধানে তিনি ফেরান রিচি বেরিংটন ও মাইকেল লিস্ককে। এর মাধ্যমে অনন্য এক মাইলফলক স্পর্শ করেন টাইগার অলরাউন্ডার। আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে এককভাবে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী হন তিনি।

৮৪ ম্যাচে ১০৭টি উইকেট নিয়ে আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে এতদিন সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী ছিলেন শ্রীলংকার লাসিথ মালিঙ্গা। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে নামার আগে সাকিবের শিকার ছিল ৮৮ ম্যাচে ১০৬টি।

নিজের তৃতীয় ওভারের দ্বিতীয় বলে রিচি বেরিংটনকে আফিফ হোসেনের ক্যাচে পরিণত করে মালিঙ্গার পাশে বসেন সাকিব। সর্বোচ্চ উইকেট শিকারীর সিংহাসনে এককভাবে বসতে তিনি সময় নেন মাত্র ২ বল।

সাকিবের করা একই ওভারের চতুর্থ বলে লিটন দাসের তালুবন্দী হন মাইকেল লিস্ক। এর মাধ্যমে আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে এককভাবে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী হিসেবে নিজের নাম লেখান সাকিব। এমন কীর্তির পরের ওভারে আবারো আঘাত হানেন মাহেদী।

দলীয় ৫৩ ও ব্যক্তিগত ৫ রানে ক্যালাম ম্যাকলিওড ফিরে গেলে বড় সংগ্রহ করা নিয়ে শঙ্কায় পড়ে স্কটিশরা। তবে দলের চিন্তা দূর করে পাল্টা আক্রমণে পঞ্চাশোর্ধ্ব জুটি গড়েন ক্রিস গ্রেভস ও মার্ক ওয়াট।

তাসকিনের বলে ২২ রান করা ওয়াট আউট হলে ভাঙে ৫১ রানের জুটি। শেষ দিকে একাই লড়াই করেন গ্রেভস। তার ৪৫ রানের ঝড়ো ইনিংসে লড়াই করার মতো সংগ্রহ পায় স্কটিশরা।

বাংলাদেশের হয়ে ৩ উইকেট নেন মাহেদী। এছাড়া সাকিব ও মুস্তাফিজ দুটি এবং তাসকিন ও সাইফউদ্দিন একটি করে উইকেট শিকার করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর- 140/9 (20)

About Polash

Check Also

দল বদল নিয়ে তুমুল সমালোচনায় এই সকল ফুটবল তারকা

গেল মৌসুম তো বটেই ২০২১ সালের আগস্টে সম্ভবত ফুটবল ইতিহাসের সবচেয়ে রোমাঞ্চকর দলবদলের সাক্ষী হয়েছিল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *