Breaking News

বিশ্বকাপ সুপার লিগে বাংলাদেশের ১২ ম্যাচের সময় সূচি প্রকাশ

বিশ্বকাপ সুপার লিগের পয়েন্ট টেবিলে বর্তমানে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপ সুপার লিগের ১২টি ম্যাচ খেলেছে টাইগাররা।

প্রথমে ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের তিনটি ম্যাচে জয়লাভ করে বাংলাদেশ। এরপর বিশ্বকাপ সুপার লিগের নিজেদের দ্বিতীয় সিরিজে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয় টাইগাররা।

সেখানে মুদ্রার উল্টো পিঠে দেখতে হয়েছে তামিম বাহিনীকে। তিনটি ম্যাচে হারতে হয়েছে বাংলাদেশকে। তবে এরপর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাঠে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। সেখানে দুই ম্যাচে জয়লাভ করলো হেরেছে একটিতে।

সর্বশেষ জিম্বাবুয়ের মাটিতে তিনটিতেই জয়লাভ করেছে বাংলাদেশ। যার কারণে ১২ ম্যাচের মধ্যে ৮ ম্যাচে জয়লাভ করে পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। এদিকে বিশ্বকাপে সরাসরি নিশ্চিত হতে হলে বাংলাদেশের সামনে আরও রয়েছে চারটি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ।

১৩ দলের এই সুপার লিগ চালু হয়েছে বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব হিসেবে। স্বাগতিক ভারত ও সুপার লিগের অন্য শীর্ষ সাত দল সরাসরি খেলবে বিশ্বকাপে।

সুপার লিগের তলানির পাঁচ দলের সুযোগ শেষ হয়ে যাবে না। আইসিসি সহযোগী পাঁচটি দেশের সঙ্গে বাছাইপর্ব খেলতে হবে তাদেরকে। সেই ১০ দলের বাছাই থেকে উঠে আসবে বিশ্বকাপের বাকি দুটি দল।

চ্যালেঞ্জ তাই সেখানেও বেশ কঠিন। সেই অনিশ্চিত ও বিব্রতকর অভিযানে না নামতে হলে সরাসরি বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করতেই হবে।

বিশ্বকাপের সুপার লিগে প্রতিটি দল খেলবে আটটি করে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ। ইতিমধ্যেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ নিউজিল্যান্ড, শ্রীলঙ্কা এবং জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে 4 টি সিরিজ খেলে ফেলেছে বাংলাদেশ।

বিশ্বকাপ সুপার লিগে এরপর বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ড। আগামী সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে সেই সিরিজটি দেশের মাঠে। তবে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পূর্ণ পয়েন্ট তো বটেই, এমনকি ২০ বা ১০ পয়েন্ট পাওয়াও হবে খুব কঠিন।

ইংলিশদের বিপক্ষে কখনোই ওয়ানডে সিরিজ জয়ের স্বাদ পায়নি বাংলাদেশ। এছাড়াও এই মুহূর্তে আইসিসি সুপার লিগের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে স্থানে অবস্থান করছে ইংল্যান্ড।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে এবং তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে সিরিজ অনুষ্ঠিত হবে সেপ্টেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহে।

এই সিরিজটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে আগামী ২৪ সেপ্টেম্বর থেকে ১১ অক্টোবর পর্যন্ত। এই সিরিজ খেলেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব খেলতে ওমান যাবে বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ শুরু হবে আগামী ১৭ অক্টোবর থেকে।

আইসিসির ভবিষ্যৎ সফরসূচি অনুযায়ী, আগামী ফেব্রুয়ারি-মার্চে আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। এটিও দেশের মাঠে।

সুপার লিগে দেশের মাঠে আফগানিস্তান সিরিজই বাংলাদেশের শেষ। এই সফরেও বাংলাদেশ ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে। এরপর সফর দক্ষিণ আফ্রিকায় ও আয়ারল্যান্ডে।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের পরপরই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ। যেটি বাংলাদেশের জন্য বরাবরই দুঃস্বপ্নের ভূমি। দক্ষিণ আফ্রিকায় তাদের বিপক্ষে তিন সংস্করণ মিলিয়ে ১৯ ম্যাচ খেলে কখনোই জয় পায়নি বাংলাদেশ। এই সিরিজ থেকে ১০ পয়েন্ট আশা করাও তাই কঠিন।

আইরিশদের বিপক্ষে সিরিজটি হওয়ার কথা ছিল গতবছর। কোভিডের প্রকোপে স্থগিত হয়ে গেছে তা। নতুন সূচিতে হবে আগামী বছরের কোনো একটা সময়ে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ আয়ারল্যান্ড।

বাংলাদেশ এখনও পর্যন্ত একমাত্র ওয়ানডে টুর্নামেন্ট জয় করেছে আয়ারল্যান্ডেই। তবে বলার অপেক্ষা রাখে না, কন্ডিশন সেখানেও খুব চ্যালেঞ্জিং।

About অজয়

Check Also

বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ড দলকে বয়কট করার আহ্বান

নিউজিল্যান্ড জাতীয় দল পাকিস্তান সফর বাতিল করে দেশে ফিরে যাওয়ায় বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডকে বয়কটের আহ্বান জানিয়েছেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *