ভারত–পাকিস্তানের ম্যাচ বাতিল করা উচিত

বিশ্বকাপ আসবে আর ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ বাতিলের আবেদন করা হবে না, এমনটা কখনো হয়?

২০১৯ বিশ্বকাপের আগেও এমন কথা শোনা গেছে। ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগেও শুরু হয়েছে সে আলোচনা। সে আলোচনায় নতুন করে যোগ দিলেন ভারতের পল্লি উন্নয়ন এবং পঞ্চায়েত রাজ বিভাগের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এবং বিজেপি নেতা গিরিরাজ সিং। বিশ্বকাপের ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচটি পুনর্বিবেচনা করার দাবি জানিয়েছেন তিনি। ২৪ অক্টোবর বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী এই দুই দলের মুখোমুখি হওয়ার কথা।

জম্মু–কাশ্মীরে দুর্বৃত্তদের হাতে একের পর এক ভারতীয় নাগরিকদের হত্যা হওয়ায় ভারত-পাকিস্তানের খেলাটি হওয়া উচিত কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় ভারত-পাকিস্তানের ম্যাচটি হওয়া উচিত কি না, এ নিয়ে নতুন করে ভেবে দেখা উচিত।’

বেশ কিছুদিন ধরেই জম্মু–কাশ্মীরে ধারাবাহিকভাবে ভারতীয় নাগরিকেরা নিহত হচ্ছেন। বিশেষ করে যাঁরা কাশ্মীরের স্থানীয় নন, তাঁরাই আক্রমণের শিকার হচ্ছেন। কয়েক দিন আগে জম্মু-কাশ্মীরে অবস্থিত কুলগ্রামের ওয়ানপহ এলাকায় দুর্বৃত্তরা দুজন শ্রমিককে লক্ষ্য করে নির্বিচারে গুলিবর্ষণ করলে ঘটনাস্থলেই তাঁদের মৃত্যু হয়। আবার গত শনিবার উত্তর প্রদেশ থেকে আসা একজন কাঠমিস্ত্রি এবং একজন পানিপুরি বিক্রেতাকে গুলি করে হত্যা করা হয়।

এদিকে একই সূরে কথা বলেছেন পাঞ্জাবের মন্ত্রী পারগাত সিং ও। ভারত পাকিস্তানের মধ্যকার উত্তেজনা আরও বাড়িয়ে দেওয়ার মতো যেকোনো কাজ থেকে বিরত থাকা কথা উচিত বলে মনে করেন এই মন্ত্রী, ‘ভারত-পাকিস্তান সীমান্তের পরিস্থিতি এখন খুব একটা ভালো নয়। দুই দেশের সীমান্তেই উত্তেজনা বিরাজ করছে। ফলে মানবতাকে রক্ষা করার জন্য আমাদের এমন কোনো কাজ করা উচিত নয়, যার ফলে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা আরও বৃদ্ধি পায়। এমন অবস্থায় ভারত-পাকিস্তানের খেলা হওয়াটা মোটেও সমীচীন নয়।’

নিহত পানিপুরি বিক্রেতা অরবিন্দ কুমার শাহর ভাই মুকেশ শাহ তো আরও বড় দাবি করেছেন। তাঁর মতে আর কোনো দিনই পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামা উচিত হবে না ভারতের, ‘পাকিস্তান থেকে জম্মু ও কাশ্মীরে দুর্বৃত্তরা প্রবেশ করে আমাদের হত্যা করছে। পাকিস্তানের বিপক্ষে আমাদের আর কোনো দিনই খেলা উচিত নয়।’

তবে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি পাকিস্তান ম্যাচকে আর দশটি সাধারণ খেলার মতোই মনে করছেন, ‘পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলাটিকে আমি অন্য সব ম্যাচের মতোই দেখছি। আমি জানি এই খেলার আগে অনেক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়, বিশেষ করে টিকিটের বিক্রি এবং চাহিদা বাড়িয়ে তোলার জন্য।’

ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার দ্বিপক্ষীয় সিরিজ দুই দেশের মধ্যকার বৈরী কূটনৈতিক সম্পর্কের কারণে অনেক দিন ধরেই বন্ধ। ফলে বর্তমানে শুধু বৈশ্বিক বা মহাদেশীয় প্রতিযোগিতাতেই এই দুই দল মুখোমুখি হয়ে থাকে। এই দুই দলের সর্বশেষ দেখা হয়েছিল ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ২০১৯ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে, বৃষ্টিবিঘ্নিত সেই ম্যাচে ভারত পাকিস্তানকে ৮৯ রানে পরাজিত করে।

About Polash

Check Also

আম্পায়ারের শর্ত মানতে নারাজ মুমিনুল, বন্ধ তৃতীয় সেশনের খেলা

চলতি ঢাকা টেস্টের প্রথম সেশন বাংলাদেশ নিজেদের করে নিলেও দ্বিতীয় সেশনে দাপট দেখিয়েছে পাকিস্তান। লাঞ্চ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *