ম্যাচ জয়ের পর মুশফিক বললেনঃ "আমি তো পোলার্ড বা রাসেল নই"

ম্যাচ জয়ের পর মুশফিক বললেনঃ “আমি তো পোলার্ড বা রাসেল নই”

প্রায় মাসখানেক ধরেই তীব্র গরমে নাকাল দেশবাসী। প্রতিদিনই তাপমাত্রার কাঁটা ছুঁয়ে যাচ্ছে ৩৮-৩৯ ডিগ্রির ঘর, কয়েকদিন তা ৪০ ছাড়িয়ে গেছে।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

এই দাবদাহের মধ্যেই আজ থেকে শুরু হয়েছে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। দুপুর ১টায় খেলা শুরু হওয়ায় ক্রিকেটারদের জন্য কাজটি আরও কঠিন।

রোববার প্রথম ম্যাচ শেষে এটি সরাসরিই বললেন বাংলাদেশ দলের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মুশফিকুর রহীম। তার মতে, অতিরিক্ত গরমের এই আবহাওয়া ক্রিকেট খেলার জন্য আদর্শ নয়।

সেটি শুধু গরমের কারণেই নয়, বাতাসের আদ্রতাও মাঠে লম্বা সময় ধরে থাকার অন্তরায়। তবে এটি বেশ ভালোভাবেই সামলেছে বাংলাদেশ দল।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

যার সুবাদে মিলেছে ৩৩ রানের জয়। আর এ জয়ের অন্যতম প্রধান রূপকার মুশফিক নিজেই। চার নম্বরে ব্যাট করতে নেমে খেলেছেন ৮৭ বলে ৮৪ রানের ইনিংস।

দলের সংগ্রহকে ২৫৭ রানে পৌঁছে দেয়ায় জিতেছেন ম্যাচসেরার পুরস্কার। সেই পুরস্কার গ্রহণ করতে এসেই তাপমাত্রার ব্যাপারেও কথা বলেছেন তিনি।

মুশফিকের ভাষ্য, ‘সত্যি বলতে, এটা ক্রিকেটের জন্য আদর্শ পরিস্থিতি নয়। শুধু গরমই নয়, ভেতর থেকে অনেক কিছুই চুসে নেয় এটা। প্রচণ্ড আদ্রতাপূর্ণ আবহাওয়া, অনেক ঘাম ঝরে। প্রতিটি বলে মনোযোগ ধরে রাখতে হয়। তবে আমাদের ক্রিকেটারদের কৃতিত্ব, তারা খুব ভালো সামলেছে। বিশেষ করে বোলাররা। মিরাজ অসাধারণ ছিল, মোস্তাফিজ-সাকিবও সঙ্গ দিয়েছে তাকে।’

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

বাংলাদেশ ইনিংসের ১৩তম ওভারে উইকেটে আসেন মুশফিক। পরে সাজঘরে ফেরেন ঠিক ৩০ ওভার পর। মাঝের সময়টায় ৮৭ বল থেকে ৮৪ রানের ইনিংস। যেখানে ছিল মাত্র ৪টি চার ও ১টি ছক্কার মার। অর্থাৎ ৬২ রানই এক-দুই থেকে নিয়েছেন তিনি। যা আরও সুন্দর করেছে তার ইনিংসটিকে।

বাউন্ডারি কম হাঁকানোর বিষয়ে মুশফিক বলেছেন, ‘আমি বিশাল দেহের কেউ নই যে সহজেই বাউন্ডারি হাঁকাতে পারব। আমি পোলার্ড বা রাসেল নই। আমি নিজের শক্তির জায়গায় থাকার চেষ্টা করি। কন্ডিশনও আমাকে সুযোগ দেয়নি খুব বেশি বাউন্ডারি মারার। আমি তাই সময় নিয়েছি, আস্তে আস্তে রান বাড়িয়েছি। একটা প্রান্ত নিরাপদ রাখতেও হতো আমাকে। সেটা আমি করেছি।’

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘ব্যাটিংয়ের জন্য এই উইকেট খুব সহজ ছিল না। শুরুতে লিটন ও সাকিবকে হারিয়ে আরও একটু চাপে ছিলাম। তবে তামিম সে সময় খুব ভালো ব্যাট করেছে, যে কারণে আমি সময় নিয়ে এগুতে পেরেছি। রিয়াদ ভাইও খুব ভালো ব্যাট করেছেন। সব মিলিয়ে এটা ভালো ম্যাচ ছিল।’

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

About অজয়

blank

Check Also

Ideas on How To Choose The Finest Research Paper Writing Service

Anyone who wants to obtain an acceptance letter by a research university is going to …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.