রেফারির জন্যই ২০১৪ বিশ্বকাপ জিততে পারেনি আর্জন্টিনা, কেন বলছেন লোথার ম্যাথিউজ?

রেফারির জন্যই ২০১৪ বিশ্বকাপ জিততে পারেনি আর্জন্টিনা, কেন বলছেন লোথার ম্যাথিউজ?

বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৪ Final-এ Germany-র কাছে ০-১ গোলে হেরে যায় Lionel Messi-র Argentina। আট বছর পরে সেই ম্যাচ নিয়ে মুখ খুললেন Germany-র প্রাক্তন

blank
blank
blank
blank
blank
blank

খুব কাছে গিয়েও FIFA World Cup 2014 (বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৪) জিততে পারেনি Argentina (আর্জন্টিনা)। খালি হাতে ফিরতে হয় লিওনেল মেসিকে (Lionel Messi)। Germany-র (জার্মানি) বিরুদ্ধে সেই ম্যাচ মেসিদেরই জেতা উচিত ছিল বলে মন্তব্য করলেন জার্মানির বিশ্বকাপ জয়ী তারকা Lothar Matthäus (লোথার ম্যাথিউজ)। তাঁর মতে, বিশ্বকাপ ফাইনালে আর্জেন্টিনার পেনাল্টি পাওয়া উচিত ছিল।

এ প্রসঙ্গে লোথার ম্যাথুজ বলেছেন, “ফাইনালটা আর্জেন্টিনার জেতা উচিত ছিল। Manuel Neuer (ম্যানুয়েল নুয়ের) যেভাবে Gonzalo Higuaín-কে (গঞ্জালো হিগুয়েন) ফাউল করেছিল, তার জন্য পেনাল্টি প্রাপ্য ছিল আর্জেন্টিনার। সেদিন ভাগ্যটা আমাদের পক্ষে ছিল। তাই রেফারি পেনাল্টিটা দেননি।”

লোথার ম্যাথিউজ আরও বলেছেন, “সেদিন বড় অন্যায় হয়েছিল আর্জেন্টিনার সঙ্গে। অবশ্যই নুয়েরের জন্য পেনাল্টি হজম করতে হত আমাদের।”

আর্জেন্টিনা শেষবার বিশ্বকাপ জেতে ১৯৮৬ সালে। প্রয়াত দিয়াগো আর্মান্দো মারাদোনার (Diego Maradona) হাত ধরে দ্বিতীয়বারের জন্য বিশ্বজয়ের স্বাদ পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। এরপর প্রায় ৩৫ বছর কেটে গেল, পেরিয়ে গেল ৮ টা বিশ্বকাপ।

চলতি বছরের শেষে বসছে আরও একটি বিশ্বকাপের আসর। সেই ১৯৮৬ সালের পর আর বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়ে ওঠা হয়নি নীল-সাদা বাহিনীদের।একের পর এক কঠিন প্রতিপক্ষকে হারিয়ে ২০১৪ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালে পৌঁছন মেসিরা। গোটা বিশ্বের আর্জেন্টাইন সমর্থকরা ফের বিশ্বজয়ের স্বপ্ন দেখেন। ম্যাচের শুরুটাও দুরন্ত করেছিল আর্জেন্টিনা।

blank
blank
blank
blank
blank
blank

ম্যাচের ২১ মিনিটেই গোল করে আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে দেওয়ার সুযোগ চলে এসেছিল হিগুয়েনের সামনে। কিন্তু নুয়েরকে একা পেয়েও জালে বল জড়াতে ব্যর্থ হন হিগুয়েন। এরপর মেসির বাঁ পায়ের শট গোলপোস্টের সামান্য বাইরে দিয়ে বেড়িয়ে যায়। ৯০ মিনিট পর্যন্ত লড়াই করেও গোলমুখ খুলতে ব্যর্থ হয় আর্জেন্টিনা। এরপর অতিরিক্ত সময়ের ১১৩ মিনিটে আসে সেই স্বপ্নভঙ্গের মুহূর্ত।

পরিবর্ত হিসেবে মাঠে নামা জার্মান স্ট্রাইকার Mario Götze-এর (মারিও গোৎজে) সেই গোলে বিশ্বজয়ের স্বপ্ন ভেঙে চুরমার হয়ে যায় আর্জেন্টিনার। ম্যাচের শেষে কান্নায় লুটিয়ে পড়েন আর্জেন্টাইন ফুটবলার থেকে সমর্থকরা। সেই ম্যাচে হারের আফশোস এখনও রয়েছে।

রেফারি যদি পেনাল্টি দিতেন আর মেসি যদি পেনাল্টি থেকে গোল করতেন, তাহলে হয়তো ৯০ মিনিটের মধ্যেই জিতে যেত আর্জেন্টিনা। অতিরিক্ত সময়ের ৩০ মিনিট আর খেলতে হত না। ১৯৯০ সালের বিশ্বকাপেও (FIFA World Cup 1990) পশ্চিম জার্মানির (West Bengal) বিরুদ্ধে রেফারির পক্ষপাতমূলক আচরণের জন্য বিশ্বকাপ জেতা হয়নি মারাদোনার আর্জেন্টিনার।

বারবার বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে সেই রেফারির বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন মারাদোনা। মেসির ট্রফি ক্যাবিনেটে শুধু বিশ্বকাপই নেই। সেই অধরা খেতাব এবার কাতারে (Qatar) মেসি জিততে পারেন কিনা, সেটাই দেখার অপেক্ষায় সারা বিশ্বের ফুটবলপ্রেমীরা।

blank
blank
blank
blank
blank
blank

About Shakil

blank

Check Also

ফাঁকি দিলেন সাকিব, এশিয়ার মিশনে দলের সঙ্গী হতে পারলেন না এনামুল-তাসকিন

দুপুর না গড়াতেই হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সংবাদকর্মীদের ভিড়। সময় গড়ানোর সঙ্গে বাড়তে থাকে তা। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.