Breaking News

হার মানলো মিরপুরের উইকেট, শ্রীলঙ্কা-উইন্ডিজের স্পিনারদের অনন্য রেকর্ড

দুই স্পিনার রমেশ মেন্ডিস ও লাসিথ এম্বুলদেনিয়ার আগুন ঝড়ানো বোলিং নৈপুণ্যে সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১৬৪ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে স্বাগতিক শ্রীলংকা।

দ্বিতীয় ইনিংসে এই দুই স্পিনারই নিয়েছেন ৫টি কিরে উইকেট। আর এই জয়ে দুই ম্যাচের টেস্ট ২-০ ব্যবধানে জিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করলো লংকানরা। সিরিজের প্রথম টেস্ট ১৮৭ রানে জিতেছিল শ্রীলংকা।

এদিকে দুই ম্যাচের এই সিরিজে দুই দলের স্পিনাররাই নিয়েছেন ৬৭ উইকেট। যা যেকোনো দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজে স্পিনারদের দ্বারা সর্বোচ্চ উইকেট শিকার করা।

এতদিন ২০১৬ সালে বাংলাদেশ বনাম ইংল্যান্ডের মধ্যকার দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে স্পিনারদের দখলে সর্বোচ্চ ৬১ টি উইকেট ছিল।

এছাড়া সিরিজে দুই জয়ে পূর্ণ ২৪ পয়েন্ট পেয়েছে শ্রীলংকা। এতে ২ ম্যাচে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের টেবিলের শীর্ষে শ্রীলংকা। ৪ ম্যাচে ১ জয় ও ৩ হারে ১২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চতুর্থ স্থানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

গলে ধনাঞ্জয়া ডি সিলভার অনবদ্য সেঞ্চুরিতে চতুর্থ দিন শেষে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৮ উইকেটে ৩২৮ রান করেছিলো শ্রীলংকা। ২ উইকেট হাতে নিয়ে ২৭৯ রানে এগিয়েছিল লংকানরা।

১৫৩ রানে অপরাজিত থেকে দিন শেষ করেছেন ধনাঞ্জয়া। ১১০ বলে ২৫ রানে অপরাজিত ছিলেন এম্বুলদেনিয়া।

আজ পঞ্চম ও শেষ দিনে ব্যক্তিগত ৩৯ রানে এম্বুলদেনিয়া আউট হলে, ৯ উইকেটে ৩৪৫ রানে ইনিংস ঘোষণা করে শ্রীলংকা। জয়ের জন্য ২৯৭ রানের টার্গেট পায় ক্যারিবিয়রা।

১৫৫ রানে অপরাজিত থাকেন ধনাঞ্জয়া। তার ২৬২ বলের ইনিংসে ১১টি চার ও ২টি ছক্কা ছিল।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ভেরাসামি পারমল ৩টি, রোস্টন চেজ ২টি ও অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট-জেসন হোল্ডার ১টি করে উইকেট নেন।

২৯৭ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে এম্বুলদেনিয়া ও রমেশের ঘূর্ণিতে দিশেহারা হয়ে পড়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটাররা। ৫৬.১ ওভার ব্যাট করে ১৩২ রানেই অলআউট হয় ক্যারিবীয়রা। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ১০ উইকেট ভাগাভাগি করে নেন এম্বুলদেনিয়া ও রমেশ।

এম্বুলদেনিয়া ৩৫ রানে ও রমেশ ৬৬ রানে ৫টি করে উইকেট নেন। এম্বুলদেনিয়া ১৩ ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে পঞ্চমবারের মতো এবং ৪ ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে দ্বিতীয়বারের মতো পাঁচ বা ততোধিক উইকেট নেন রমেশ।

প্রথম ইনিংসে ৬টি এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ৪টিসহ মোট টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো ম্যাচে ১০ উইকেট শিকার করেন রমেশ।

দ্বিতীয় ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৪ রান করেন এনক্রুমার বোনার। এরপর জার্মেই ব্ল্যাকউড ৩৬ ও শাই হোপ ১৬ রান করেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন শ্রীলংকার ধনাঞ্জয়া ও সিরিজ সেরা হন রমেশ।

About Shakil

Check Also

দল বদল নিয়ে তুমুল সমালোচনায় এই সকল ফুটবল তারকা

গেল মৌসুম তো বটেই ২০২১ সালের আগস্টে সম্ভবত ফুটবল ইতিহাসের সবচেয়ে রোমাঞ্চকর দলবদলের সাক্ষী হয়েছিল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *