Breaking News

১ম দল হিসেবে বিশ্বরেকর্ড গড়ে ইতিহাস সৃষ্টি করলো পাকিস্তান

মোহাম্মদ রিজওয়ানের ৫০ বলে অপরাজিত ৭৪ ও শেষ দিকে ফাহিম আশরাফের ১৪ বলে ৩০ রানের জড়ো ইনিংসের সুবাদে জয় পেল পাকিস্তান।

টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে ১ বল বাকি থাকতে ৪ উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে বাবর আজমের দল। তাতে জয় দিয়ে মোহাম্মদ হাফিজের শততম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ রাঙিয়ে রাখল পাকিস্তান।

জয়ের জন্য ১৮৯ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা ভালো করেছিলেন দুই ওপেনার বাবর ও রিজওয়ান। ১৪ বলে ১৪ রান করে পাকিস্তানের অধিনায়ক ফিরলে ভাঙে তাঁদের দুজনের ৪১ রানের জুটি।

ওয়ানডে সিরিজে দারুণ সময় পার করা ফখর জামান তিনে নেমে শুরুটা ভালো করলেও ইনিংস বড় করতে পারেননি। ৪টি চার ও ১ টি ছক্কার সাহায্যে ১৯ বলে ২৭ রান করে তাবরাইজ শামসির বলে ফেরেন তিনি।

এদিন অবশ্য থিতু হতে পারেননি নিজের শততম টি-টোয়েন্টি খেলতে নামা হাফিজ। শামসির বলেই ফিরেছেন ১১ বলে ১৩ রান করে। তবে এদিন শোয়েব মালিক টপকে টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তানের সর্বোচ্চ মালিক হয়েছেন তিনি।

হায়দার আলী ও মোহাম্মদ নওয়াজরা থিতু হতে না পারলেও একপ্রান্ত আগলে রেখেছিলেন রিজওয়ান। শেষ দিকে ফাহিমের সঙ্গে ৪৮ রানের জুটি গড়ে দলকে জয় এনে দেন রিজওয়ান।

ফাহিম ১৪ বলে ৩০ রান করে ফিরলেও ৫০ বলে ৭৪ রান করে অপরাজিত ছিলেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান রিজওয়ান। এর আগে টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে দারুণ শুরু করেন দক্ষিণ আফ্রিকার দুই ওপেনার অ্যাইডেন মার্করাম ও জানেমান মালান।

প্রথম দুই ওভারে মাত্র ১২ রান আসলেও তৃতীয় ওভারে শাহীন আফ্রিদিকে ২ ছক্কা ও এক চার মেরে আক্রমণাত্বক শুরুর আভাস দেন মালান। তবে সেটি খুব বেশি সময় ধরে রাখতে পারেননি ডানহাতি এই ওপেনার।

পরের ওভারেই মোহাম্মদ নওয়াজের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে সাজঘরে ফেরেন মালান। ১৬ বলে ২৪ রান ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান ফিরলে ভাঙে তাঁদের দুজনের ৩১ রানের জুটি। এদিন থিতু হতে পারেননি উইয়ান লুবে।

৪ রান করে হাসান আলীর বলে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। ৩৬ রানে ২ উইকেট হারালেও শুরুর বিপর্যয় সামাল দেন মার্করাম ও হেনরিক ক্লাসেন।

এই দুজনের জুটি থেকে আসে ৬২ রান। ৩২ বলে ৫১ রান করে মার্করাম সাজঘরে ফিরলে ভাঙে তাঁদের দুজনের এই জুটি। মার্করাম হাফ সেঞ্চুরি করে ফিরলে দ্রুতগতিতে ২৮ বলে ৫০ রান করেন অধিনায়ক ক্লাসেন। শেষ দিকে ২৪ বলে ৩৪ রানের কার্যকরী ইনিংস খেলেন পিট ভ্যান বিলজোন।

মার্করাম ও ক্লাসেনের হাফ সেঞ্চুরিতে শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮৮ রান তোলে দক্ষিণ আফ্রিকা। পাকিস্তানের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন নওয়াজ ও হাসান। আর একটি করে উইকেট নিয়েছেন শাহীন ও হারিস রউফ।

পাকিস্তান এই জয় দিয়ে ১ম দল হিসেবে ১০০ তম টি-২০ জয়ের স্বাদ পেয়েছে। এই পর্যন্ত ভারত জিতেছে ৮৮টি ম্যাচ এবং দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড জিতেছে ৭১টি করে ম্যাচ।

About অজয়

Check Also

জাইগা না পাওয়া জয়ের নায়ক বেঙ্কটেশ আয়ারের সম্পর্কে যা বললেন মর্গ্যান

আইপিএল-এ প্রথম পর্বের সাতটি ম্যাচে দলে জায়গা হয়নি। দ্বিতীয় পর্বে প্রথম ম্যাচে বিরাট কোহলীর রয়্যাল …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *