৪ ওভারে ৩৪ রান দেওয়া সাকিবকে ২য় ম্যাচে একাদশে রাখা হবে নাকি জানালো অধিনায়ক মরগান

৪ ওভারে ৩৪ রান দেওয়া সাকিবকে ২য় ম্যাচে একাদশে রাখা হবে নাকি জানালো অধিনায়ক মরগান

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ আইপিএলে শুভ সূচনা করেছে সাকিব আল হাসানের কলকাতা নাইট রাইডার্স। টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আজ সানরাইজার্সকে ১০ রানে হারিয়ে জয় তুলে নিয়েছে তারা।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

তবে আইপিএলের চতুর্দশ আসর খরুচে বোলিং দিয়ে শুরু করলেন সাকিব আল হাসান। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে ৪ ওভার বল করলেও একটি চার ও তিনটি ছক্কা হজম করেছেন বাংলাদেশি তারকা।

বল হাতে অবশ্য সাকিবের শুরুটা ছিল দারুণ। বাংলাদেশি অলরাউন্ডার আক্রমণে আসেন ইনিংসের তৃতীয় ওভারে। আগের ২ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে ১০ রান সংগ্রহ করেছে হায়দরাবাদ। সোকিব তার প্রথম বলেই বোল্ড করে বসেন ঋদ্ধিমান সাহাকে।

অবশ্য তাতে ঋদ্ধিমানেরও দায় আছে। কাট করতে গিয়ে বাইরের বলকে স্ট্যাম্প অবধি নিয়ে আসার কাজটা তিনিই করেছেন। সেই ওভারে সাকিব অল্পের জন্য মেডেন পাননি। পুরো ওভারে বিলি করেন ১ রান। ওভারের শেষ বলে সিঙ্গেলের ব্যবস্থা করেন জনি বেয়ারস্টো।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

এক স্পেলেই সাকিব করেন মোটে ৩ ওভার। সাকিবের ৫ বল খেলে ১ রান করা বেয়ারস্টো পরের ওভারেই রূপ বদলান। প্রথম বলে ডট, দ্বিতীয় বলে ছক্কা, তৃতীয় বলে সিঙ্গেল। মনিশ পান্ডে স্ট্রাইকে এসে প্রথম বলে ডট, কিন্তু পরের বলে চার। শেষ বলে ১ রান নিয়ে এই ওভারে সাকিবের খরচকে বানান ১২ রান।

সপ্তম ওভারেও সাকিবকে হজম করতে হয় একটি ছক্কা। নিজের তৃতীয় ওভারে বিলি করেন ১০ রান। বেয়ারস্টো পাণ্ডে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠলে সাকিব আর বল হাতে নেননি। ফের বল হাতে আসলেন ১৪তম ওভারে, অর্ধশতক হাঁকিয়ে বেয়ারস্টো বিদায় নেওয়ার পর। কিন্তু তখনো পড়লেন মনিশের তোপের মুখে।

নিজের শেষ ওভারে সাকিব বিলি করেন ১১ রান। মনিশ হাঁকান একটি ছক্কা। দুটি সিঙ্গেল নিয়েছেন আফগান অলরাউন্ডার ও সাকিবের অন্যতম বড় প্রতিদ্বন্দ্বী মোহাম্মদ নবী। সব মিলিয়ে ৪ ওভারে ৩৪ রান খরচ করেন ১ উইকেট নেওয়া সাকিব।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

এখন বড় প্রশ্ন হলো সাকিবের এমন পারফর্ম্যান্সের পরে কলকাতা টিম ম্যানেজম্যান্ট তাকে পরবর্তী ম্যাচে দলে রাখবেন কিনা। কারণ বিদেশী কোটায় অনেক প্রতিযোগিতার মধ্যে দিয়ে কলকাতার একাদশ সুযোগ করে নিয়েছেন সাকিব।

কলকাতার প্রত্যাশা পূরণে কিছুটা ব্যর্থ হলেও সাকিবের প্রতার্বত্নের দিনে কলকাতার ১০ রানের জয় তাকে পরবর্তী ম্যাচের জন্য কিছুটা নিশ্চিত করেছে। ম্যাচ শেষে এমনই ইঙ্গিত দিলেন কলকাতার অধিনায়ক ইয়ন মরগান। তার ভাষ্যমতে আইপিএল বড় একটি টুর্নামেন্ট, তাই তারা এমন কম্বিনেশন নিয়ে টুর্নামেন্ট শেষ করতে চান।

মূলত কোনো দলই কখনো উইনিং কম্বিনেশন একাদশ পরিবর্তন করতে চায় না। তবে তুলনামূলক অন্য বোলারদের চেয়ে অনেকটা ভালই করেছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তাই পরবর্তী ম্যাচেও সাকিবকে কলকাতার একাদশে দেখা যাবে।

blank
blank
blank
blank
blank
blank
blank

About অজয়

blank

Check Also

Ideas on How To Choose The Finest Research Paper Writing Service

Anyone who wants to obtain an acceptance letter by a research university is going to …

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.